লাইফ স্টাইল ও স্মার্ট ফ্যাশন | লাইফ স্টাইল টিপস

আসসালামু আলাইকুম, কেমন আছেন বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি কিভাবে নিজের লাইফ স্টাইল ও স্মার্ট ফ্যাশন এর মাধ্যমে জীবন পরিবর্তন করবেন।

লাইফ স্টাইল টিপসঃ
আপনার জীবন আপনার কাছে মূল্যবান। তাই এই মূল্যবান সম্পদকে সঠিক কাজে লাগান এতে আপনার জীবন সুন্দর হবে। কারণ মানুষের জীবন একটাই।

আমাদের ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে আপনাদের স্বাগতম।

আমাদের এই ওয়েবসাইট আপনাদের মাঝে নতুন নতুন সব খবর প্রচার করে থাকে যেমনঃ অনলাইন ইনকাম, চাকুরির খবর, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ, রেজাল্ট, রুটিন, ফরম ফিলাপ নোটিশ, ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ইত্যাদি। 

লাইফ স্টাইল নিউজঃ


সানগ্লাস : 

আমাদের নানা কারণে কাজের জন্য অতিরিক্ত সূর্যের উত্তাপের মধ্যে বের হতে হয়। রৌদ যেমন ভিটামিন ডি তেমনি ক্ষতিকারক যেমন- রৌদ চোখের জন্য ক্ষতিকর। তার জন্য বেশি রৌদ থেকে চোখ ভালো রাখতে সানগ্লাস ব্যবহার করুন। সানগ্লাস এর মধ্যেও পার্থক্য রয়েছে যেমন কালা চশমা বাকা স্টাইল এটি হলো অতিরিক্ত স্টাইলিশ। ভদ্র সানগ্লাস হলো সুন্দর ফ্রেমে সাদা গ্লাস। এই সানগ্লাস ভদ্র লোকদের জন্য যারা এরকম সানগ্লাস ব্যবহার করে তাদের চোখে কোন সমস্যা হয়না। আর কালো চশমা পড়লে অনেক সমস্যার মুখামুখি হবেন যেমন ধরুন কালো চশমা পড়ে রাতে বাইক চালাচ্ছেন আপনার সামনে গাড়ি আসলেও বুঝতে পারবেন না এর ফলে কোন দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। তাই রৌদ ঠেকাতে সাদা সানগ্লাস ব্যবহার করুন এতে আপনার চোখ সুরক্ষা থাকবে। 


পোশাক : 

আমরা সমাজের সাথে তাল মিলিয়ে পোশাক আশাক অঙ্গে পরিধানের করে থাকি। আমাদের সমাজে অনেকে আছি যারা টাকার গরমে বেশি দামি পোশাক পরিধান করি। কিন্তু বেশি দামের পোশাক পরলেই স্টাইলিশ হওয়া নই। বেশি বা কম দামি হোক না কেন এতে সমস্যা নেই। বর্তমান যুগের সাথে তাল মিলিয়ে যে কোন পোশাক পড়তে পারবেন। কিন্তু যে পোশাকটি আপনি পরিধান করবেন সেটি পরিষ্কার পরিছন্নতা ও মার্জিতপূর্ণ হতে হবে। ছেড়া ফাড়া না হলেই চলবে।

গরমের সময় হাফ হাতা শার্ট বা র্টি শার্ট : 

আমাদের দেশ ৬ টি ঋতুর। কিন্তু আমরা বেশির ভাগ অনুভব করি শীত, গ্রীষ্ম ও বর্ষা কাল। গ্রীষ্মের প্রচন্ড গরমে আমাদের শরীরে ঘাম জমাট বাধে। আমরা অনেকেই গরমের মধ্যে ফোল হাতা শার্ট বা র্টি-শার্ট পরিধান করে থাকি, এতে আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকারক কারণ। উক্ত ফোল হাতা শার্ট পরিহার করতে হবে তার মানে আপনি মনে করছেন শার্ট পরা কি বাদ দিবো? আমি বলবো একদমি না? আপনি গরমের সময় হাফ হাতা শার্ট বা র্টি শার্ট এবং পাতলা জিন্সপ্যান্ট পড়ুন এতে আপনার গরম ও কম লাগবে এছাড়া আপনার শরীরে ভালো মানাবে। অতিরিক্ত গরম থেকে রক্ষা পাবার জন্য বাজার থেকে স্টাইলিশ পাতলা গেন্জি বা শার্ট কিনে পরিধান করলে শরিলের উপর কোন গরমের প্রভাব পরবে না। এতে আপনার শরীর সুস্থ্য থাকবেন ভাইরাস জনীত রোগের নাগালের বাহিরে থাকবেন। 


অনেক মানুষ আছে যারা স্টাইল এর নামে ছেড়া ফাটা পোশাক পড়ে সমাজের মধ্যে স্টাইলিশ মনে করে ঘুড়ে বেড়াই। এছাড়া মেনে করে ছেড়া ফাটা কাপড় পড়লে গরম কম লাগে, আরে পাগল এটাকে স্টাইল বলে না  ছেড়া ফাটা পোশাক পড়লে স্টাইলিশ হওয়া যায় না। গরম থেকে রক্ষা পেতে মার্জিত পোশাক যথেষ্ট।

বিশ্বে অনেক মানুষ আছে তারা কেওবা ধনী, বেশির ভাগ মধ্যবিত্ত আবার অনেকে গরীব, বাজারে অনেক পোশাক আছে যার মধ্যে অতিরিক্ত স্টাইলিশ পোশাক হলো ছেড়া ফাটা তার দাম ও অনেক। তবে যারা গরিব ও মধ্যবিত্ত পরিবারে বসবাস করে তারা বেশি টাকা দিয়ে ছেড়া ফাড়া জামা কাপর না কিনতে পারলেও কম দামি সুন্দর মার্জিত স্টাইলিশ পোশাক কিনে পরিধান করতে পারেন। কারণ বেশি টাকা খরচা করে ছেড়া পোশাক কিনার চেয়ে মার্জিত সুন্দর ভদ্র পোশাক পরিধান করা উত্তম। এতে আপনি সমাজের কাছে সম্মানের হতে পারবেন তা না হলে সমাজ আপনার থেকে দূরে চলে যাবে। নিজেকে পরিপাটি করে রাখতে প্রস্তুত করুন।

শীত কালিন সময়ের পোশাক : 

শীতের সময় অনেক রকমের স্টাইলিশ পোশাক বাজারে পাওয়া যায়। শীতের সময় আমাদের উচিৎ ফোল হাতা শার্ট বা মোটা টি শার্ট পরিধান করা এবং তার সাথে মোটা ধরনের জিন্সপ্যান্ট বেশি মানাবে। প্রচন্ড  শীত কালিন সময়ে ফোল হাতা শার্ট বা টি শার্ট দিয়ে শীত কাটার কথা নই। তার জন্য আপনার প্রয়োজন মার্জিত জ্যাকেট যা আপনার নিজের ব্যক্তিত্বের সাথে যায় এমন জ্যাকেট কিনুন । এতে আপনার সম্মান বাড়বে, এটাকে বলে সামাজিক স্টাইল। অনেকে আছে যারা ছেড়া ফাটা জ্যাকেট পরিধান করে নিজেদের স্টাইলিশ ভাবে। নিজেকে পরিপাটি করে রাখার চেষ্টা করুন এতে আপনার জীবন সুন্দর হবে। 


পাঞ্জাবি : 

পাঞ্জাবি হলো ছেলেদের মার্জিত স্টাইল। বাজারেরঅনেক ধরণের পাঞ্জাবি রেয়েছে যানআপনি ক্রয় করে পরিধান করুন। এতে করে আপনার সম্মান বৃদ্ধির পাবে কেননা আপনি যখন কোন উৎসবের সময় পাঞ্জাবি পরিধান করবেন তখন আপনার মর্যাদা বৃদ্ধি পাবে। পাঞ্জাবি আমাদের হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) পরিধান করতেন, এটি অনুসরণ করলে আপনার সুন্নত হবে। কিন্তু বর্তমান যুগের মানুষ পাঞ্জাবি পরিহার করে ছেড়া ফাটা স্টাইল মার্কা প্যান্ট, শার্ট পড়ে নামাজ পড়তে যায়। তাই এরকম অবস্থা থেকে বিরত থাকুন নিজেকে সুন্দর করে তুলন পাঞ্জাবি পরিধান করুন। 

যাতায়ত প্রয়োজনে বাইক :

আমরা যারা চাকুরি বা ব্যবসা করি তাদের গুরুত্বপূর্ণ যাতায়ত ব্যবস্থা হলো বাইক। কিন্তু বর্তমানে অনেক মানুষ বাইক চালানো এক ধরণের স্টাইল বা ফ্যাশন মনে করে। আরে ভাই বাইক স্টাইল বা ফ্যাশন করার কোন জিনিস নয়। অনেক মানুষ পরিবারকে চাপ দিয়ে বাইক কিনে নেন, অনেক বন্ধু মিলে অনেকটি বাইক বের করে এক সাথে বাইক যাত্রা শুরু করে তার ফলে অনেক  দুর্ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে জীবন শেষ করে ফেলে। আরে মানুষের জীবন একটাই হেসে খেলে শেষ করার জিনিস নয়। বাইক হলো যাতায়ত মাধ্যম তাই এটাকে নিয়ে এত স্টাইল, ফ্যাশন দেখানোর কোন কারণ নেই। 

ছাতা ব্যবহার করুন : 

ছাতা আমাদের অত্যন্ত প্রয়োজনীয় বস্তু যা আমাদের জীবন চলার পথে গুরুত্ব ভুমিকা পালন করে থাকে যেমনঃ প্রচন্ড রৌদ এবং বৃষ্টি থেকে রক্ষা করার হাতিয়ার আমাদের ছাড়া। বৃষ্টি ও রৌদ থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য ছাতা ব্যবহার করুন। এতে করে আপনার দেহে ক্ষতিকারক রৌদ পৌছাতে পারবে না এবং বৃষ্টিতে ভিজে ঠান্ডা লাগার হাত থেকে রক্ষা পাবেন। 


বিড়ি, সিগারেট, নেশা জাতীয় সেবন থেকে দূরে থাকুন : 

বর্তমান যুগে অনেক মানুষ আছে যারা বিড়ি, সিগারেট ও নেশা জাতীয় দ্রব্যকে লাইফ স্টাইল ও ফ্যাশন মনে করে। কিন্তু এটি মানুষের বড় ভুল, কারণ বিড়ি, সিগারেট হলো মরন ধোঁয়া। যার ফলে শুরু হতে থাকে অনেক ধরণের নেশা। নেশা গভীরতায় ডুবে আসতে আসতে মানুষ মৃত্যুর মুখমুখি চলে যায়। এতে করে ক্যানসারের মতো বড় বড় রোগে আক্রান্ত হয়। তাই আমি বলবো বিড়ি, সিগারেট, নেশা জাতীয় সেবন করা এটিকে কোন লাইফ স্টাইল বা  ফ্যাশন বলে না। আপনি উচিৎ বিড়ি, সিগারেট নেশা জাতীয় পরীহার করে সে টাকা সঞ্চয় করুন এতে আপনার ভবিষ্যত জীবন সুন্দর হবে। এতে করে আপনার লাইফ স্টাইল ভালো হবে। 

মন্তব্যঃ

আলোচনার শেষে বলা যায় যে, আপনি যদি উপরের আর্টিকেল গুলো অনুসরণ করেন তাহলে সঠিক লাইফ স্টাইল ও ফ্যাশন করতে পারবেন। ফ্যাশন হলো নিজেকে পরিপাটি করে গুছিয়ে রাখা। যাতে সমাজের মানুষ আপনাকে ভালোবাসে এরকম ভাবে লাইফ স্টাইল ও ফ্যাশন করুন। 

আমাদের এই ওয়েবসাইটে থাকার জন্য আপনাদের ধন্যবাদ। লাইফ স্টাইল ও ফ্যাশন এর উক্ত আলোচনা যদি আপনার ভালো লাগে  তাহলে অবশ্যই আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। সাথেই থাকুন আমাদের এই Education and Jobs এর। 

Post a Comment

0 Comments