টাকা আয় করার apps : কোন apps দিয়ে টাকা আয় করা যায়

টাকা আয় করার apps : বর্তমান সময়ে আমরা গুগল প্লে স্টোর-এ অনেক ধরণের টাকা আয় করার apps গুলো পেয়ে থাকি। যে সকল এপস দিয়ে আমরা টাকা আয় করতে পারি। 

সেই সকল Apps গুলো আমাদের কাজ করার বিনিময়ে ব্যাংক একাউন্ট, মোবাইল রিচার্জ, PayPal ইত্যাদি একাউন্ট এর মাধ্যমে আমাদের আয় করা টাকা গুলো প্রদান করে থাকে।

এক্ষেত্রে আপনি মনে রাখবেন গুগল প্লে স্টোরে এই সকল টাকা আয় করার Apps গুলোর মধ্যে সব কয়টি কিন্তু ভালো হবে না।

টাকা আয় করার অ্যাপ গুলোর মধ্যে অনেক apps আছে যে গুলোতে কাজ করার পরে টাকা দেওয়া হয় না। তাই এই সকল অ্যাপস গুলো থেকে টাকা আয় করা থেকে সতর্ক থাকতে হবে।

এছাড়া আপনাদের আরও একটি কথা বলছি যে অনলাইনে টাকা আয় করার apps গুলো ব্যবহার করে আপনি তেমন বেশি টাকা উপার্জন করতে পারবেন না। 

মনে করুন এই ধরণের টাকা আয় করার apps গুলোতে আপনি যে পরিমানের সময় নিয়ে কাজ করবেন সেই সময় অনুযায়ী আপনাকে টাকা দেওয়া হবে না। 

তাই আমি আপনাদের কোন সময় এই ধরণের apps গুলোতে কাজ করার পরামর্শ প্রদান করব না।

কিন্তু আপনি যদি নিজের খুশিতে কিছু ভালো এবং ট্রাস্টেড টাকা আয় করার apps গুলোর বিষয়ে জানতে চান তাহলে আমি আজ এই নিবন্ধে আপনাদের জন্য কিছু ট্রাস্টেড ও জনপ্রিয় apps এর সাথে পরিচয় করিয়ে দেব। 

আপনি সেই সকল অ্যাপস গুলোতে কাজ করে মোটামুটি ভালো টাকা আয় করতে পারবেন।

আমি যে সকল এপস গুলো নিয়ে আজ আলোচনা করব সে গুলো নিচের অংশে অনলাইনে থাকা রিভিউ এর উপর ভিত্তি করে আপনাদের বলেছে।

তো চলুন সময় নষ্ট না করে জেনে নেওয়া যাক নিজের স্মার্ট মোবাইল থেকে টাকা আয় করার apps গুলোর সম্পর্কে।


টাকা আয় করার Apps 

আমরা আগেই বলেছি এই অ্যাপস গুলো আমরা ইন্টারনেট এর রিভিউ দেখে আপনাদের সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি। আমি নিজেও এই টাকা আয় করার Apps গুলো ব্যবহার করি নাই। 

আপনি যদি অল্প টাকা আয় করতে আগ্রহী থাকেন তাহলে আপনি টাকা আয় করার Apps গুলো ব্যবহার করতে পারেন।

আমরা অনলাইনের রিভিউ এবং কমেন্ট গুলো পড়ার পরে বুঝতে পারি এই টাকা আয় করার apps গুলোতে, অনেক স্টুডেন্ট, গৃহিনীসহ আরও অনেক মানুষ এই সকল এন্ড্রোয়েড এপস গুলোর মাধ্যমে পার্ট-টাইম কাজ করে টাকা উপার্জন করছে।

সেক্ষেত্রে আপনি যদি অযথা ঘোড়া-ঘোড়ি করে কোন কাজ না পান। তাহলে এই টাকা আয় করার apps গুলোতে কাজ করতে পারবেন। 

কোন Apps দিয়ে টাকা আয় করা যায়

আমরা এখানে টাকা আয় করার কিছু জনপ্রিয় অ্যাপস গুলোর সাথে পরিচয় করিয়ে দেব। আপনি সেই এপস গুলোতে কাজ করে কিছু টাকা আয় করার সুযোগ পাবেন। 

বেকার থাকার চেয়ে প্রতিদিন যদি ১০০-২০০ টাকা আয় করা যায় এটিই অনেক।

তো চলুন টাকা আয় করার apps গুলোর সাথে পরিচিত হওয়া যাকঃ


টাকা আয় করার apps  Pocket Money 

আমরা প্রথমে যে অ্যাপস নিয়ে আলোচনা করব তা হচ্ছে- pocket money. বর্তমান সময়ে এই অ্যাপস অনেক জনপ্রিয় ও ট্রাস্টেড। 

এই অ্যাপসটি গুগল প্লে স্টোরে রেটিং হচ্ছে 4.2. এখানে আপনি বিভিন্ন ধরণের ট্রাস্ক গুলো পূরণ করে রিওয়ার্ডস গুলো নিতে পারবেন।

টাকা আয় করার apps : pocket money থেকে যেভাবে আয় করবেনঃ

pocket money এপস এর মধ্যে থেকে অনেক ধরণের অ্যাপস আছে সেগুলো আপনি ডাউনলোড করে টাকা আয় করতে পারবেন।

আপনি এখানে Tombola Game খেলে টাকা আয় করতে পারবেন। 

রেফার এর মাধ্যমে আপনারা অন্য ব্যক্তিদের মাধ্যমে এই অ্যাপ ইনস্টল করাতে পারলে প্রদিতিন ১৬০ টাকা আয় করতে পারবেন।

এছাড়া pocket money এর মাধ্যমে আপনি আরও ছোট ছোট জরিপ/সার্ভে কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

আপনারা এই অ্যাপস এ কাজ করে যে পরিমাণের টাকা যুক্ত করতে পারবেন এটি আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্ট, নগদ, রকেট, বিকাশ এর মাধ্যমে উত্তলণ করে নিতে পারবেন।

আমরা আপনাদের সুবিধার জন্য pocket money অ্যাপস ডাউনলোড করার লিঙ্ক শেয়ার করেছি সেখানে ক্লিক করে সরাসরি আপনার মোবাইলে ডাউনলোড করতে পারবেন।

টাকা আয় করার apps :  Poll Pay

টাকা আয় করার Apps : আপনি যদি অনলাইনে ছোট ছোট সার্ভে করে আয় করতে চান তাহলে Poll Pay অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন। এখানে বিশেষ কোন কাজ করতে হবে না। সহজ কিছু সার্ভে করে উত্তর জমা দিয়ে মোবাইল থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।

এই অ্যাপে সার্ভে গুলো করা হবে বিভিন্ন বিষয়ের প্রশ্ন উত্তর দেওয়ার জন্য। এই কাজটি যে কোন ব্যক্তি করতে পারবেন। 

আপনি এই অ্যাপ এ কাজ করে টাকা উত্তরণ করতে পারবেন PayPal, Amazon gift cards ইত্যাদির মাধ্যমে।

টাকা আয় করার apps : Earn Talk Time

আপনি যদি এই অ্যাপ থেকে টাকা আয় করতে চান তাহলে মূলত রেফার এন্ড আর্ন এর অপশন পাবেন। এখানে নিজের রেফারেল লিংব এর মাধ্যমে অন্য ব্যক্তিদের Earn Talktime app এ যুক্ত করিয়ে আয় করতে পারবেন।

এই অ্যাপ এর মাধ্যমে আপনি শপিং করতে পারবেন এবং শপিং করলে অনেক টাকা কেশ ব্যাক পাবেন। এছাড়া এখানে অ্যাপস ডাউনলোড করেও টাকা আয় করার উপায় রয়েছে।

আপনি যদি এসপ এ কাজ করতে চান তাহলে অবশ্যই আপনার মোবাইলে ডাউনলোড করতে হবে গুগল প্লে স্টোর থেকে।

টাকা আয় করার apps : Cash Buddy

Cash buddy একটি সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ। এখানে আপনারা কিছু ছোট ছোট কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন। যেমন :  অ্যাপস ডাউনলোড করে, গেম খেলে, অ্যাপস রেজিষ্ট্রেশন করে ইত্যাদি।

এই অ্যাপস এর মাধ্যমে শপিং করে অনেক টাকা ক্যাশ ব্যাক পাওয়া যায়। এছাড়া ইনভাইট এর সুবিধা আছে। যার মাধ্যমে এপস টি রেফার করে আয় করতে পারবেন।

আপনি এখানে কাজ করে যে টাকা আয় করবেন সেটি আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্টে ট্রান্সফার করে নিতে পারবেন।

টাকা আয় করার apps : Meesho app

Meesho Apps এমন একটি Product Reselling Apps যা ব্যবহার করে আপনি সত্যি আনলিমিটেড টাকা আয় করার সুযোগ পাবেন। 

এখানে আপনি সকল ধরণের Clothing Products আছে মেযন- Suits, Ladies Tops, Kurta, Sarees ইত্যাদি।

এই সকল পণ্য গুলো আপনারা রিসেল করে টাকা আয় করতে পারবেন। এজন্য এই অ্যাপটি আপনার স্মার্ট ফোনে ডাউনলোড করে ইনস্টল করে একটি একাউন্ট তৈরি করে নিতে হবে।

একাউন্ট তৈরি করা হলে আপনি যে পণ্য গুলো মানুষের কাছে বিক্রি করতে চান সেগুলো নির্বাচন করে নিবেন। 

নির্বাচন করার পরে আপনি যে মুল্যে বিক্রি করবেন সেটি প্রস্তুত করে দিতে হবে। তাপরে আপনার পণ্যের লিংক বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া যেমন- ফেসবুক, টুইটার প্লাটফর্ম গুলোতে শেয়ার করবেন।

আপনার শেয়ার করা লিংক থেকে যদি কোন প্রডাক্ট বা পণ্য গ্রাহকরা অর্ডার করে তাহলে আপনি Meesho অ্যাপস এর পক্ষ থেকে সেই প্রডাক্ট ডেলিভারি করে দেওয়া হবে। 

সেই পণ্যের সঠিক দাম রেখে বাকি লাভের অংশ আপনাকে দেওয়া হবে।

আপনি যদি এই অ্যাপস এর প্রতি আগ্রহী থাকেন তাহলে আজই ডাউনলোড করে কাজ শুরু করুন।


শেষ কথাঃ

তো বন্ধুরা আমাদের এই নিবন্ধে আপনাদের সাথে শেয়ার করলাম টাকা আয় করার apps : কোন apps দিয়ে টাকা আয় করা যায়।

আমরা আশা করি আপনি অ্যাপস গুলোর সাথে ভালো ভাবে পরিচিত হয়েছেন। 

আপনি যদি সেই টাকা আয় করার apps গুলো নিয়ে কাজ করতে পারেন তাহলে প্রতিদিন আয় করার সুযোগ পাবেন।


আমাদের এই লেখা আপনার কাছে কেমন লাগলো অবশ্যই কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাবেন।

আমাদের এই ওয়েবসাইটে মোবাইল এপস এর বিষয়ে বিভিন্ন পোস্ট পাবলিশ করা আছে আপনি চাইলে সেই আর্টিকেল গুলো পড়ে নিতে পারবেন।

আমাদের সাইট থেকে অনলাইনে টাকা আয় করার সহজ উপায় গুলো জানতে নিয়মিত ভিজিট করুন ধন্যবাদ। 

Post a Comment

0 Comments